ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এবার দুবাইতে !

কোভিড -১৯ এর জন্য ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এবার ভারতের বাইরে অর্থাৎ সংযুক্ত আরব আমিরাতে হচ্ছে এবং সেটা হবে ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ নভেম্বর পর্যন্ত। এর আগে ভারতের নির্বাচনের কারণে ২০১৪ সালে আইপিএল আরব আমিরাতে হয়েছিলো।

ভারতের ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) এর আগেও জানিয়েছিলো ভারতে আইপিএল আয়োজন এই করোনা কালে কতটা চ্যালেঞ্জিং। তাই এতদিন পর্যন্ত তারা কোনো সিদ্ধান্ত নেন নাই। তবে তাই বলে যে তারা চুপ চাপ বসে আছেন, তা কিন্তু নয়। বিসিসিআই তাদের চিন্তা ভাবনা এবং আলোচনা সবই চালু রেখেছেন তবে একটু গোপনে। তার ফল স্বরূপ এবার তারা আইপিএল নিয়ে মিডিয়ার সামনে মুখ খুলেছে। কোভিড -১৯ এর জন্য ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এবার ভারতের বাইরে অর্থাৎ সংযুক্ত আরব আমিরাতে হচ্ছে। এছাড়া শুক্রবারের ভার্চুয়াল বৈঠকে যা ঘটেছিল তা ও গোপন রাখে বিসিসিআই।

কোভিড -১৯ সংযুক্ত আরব আমিরাতে এখনো খুব একটা প্রভাব ফেলে নাই। এখনও পর্যন্ত সেখানে ৫৬৭ জন মারা গেছে এবং ৪৮,৪৪৮ জন সুস্থ হয়েছেন, সনাক্ত হয়েছিলো ৫৬,৪২২ জন। কিন্তু ভারতে ১ মিলিয়নেরও বেশি আক্রান্ত হয়েছে এবং ২৫০০০ এরও বেশি মারা গেছে। তাই দুবাইয়ের তিনটি ভেন্যু দুবাই, আবুধাবি এবং শারজাহ ম্যাচ ফেললে আইপিএল আয়োজন সহজ হবে। দুবাই যেহেতু আন্তর্জাতিক ভ্রমণের জন্য ট্রানজিট বন্দর, তাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের ভারতের চাইতে, দুবাইতে আসা সহজ হবে।

IPL Auction

তবে অক্টোবর এবং নভেম্বর মাসে নির্ধারিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের কথা ছিলো, কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি ) সেটি স্থগিত করে। সোমবার আইসিসির বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে ভারতের ক্রিকেট বোর্ড বলছে তারা আইপিএল আয়োজনের বিষয়ে সরকারের অনুমতির অপেক্ষা করছেন। “মুম্বাই-পুনের চারটি স্থানে আইপিএল পরিচালনা করার পাশাপাশি সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিয়ে যাওয়ার উভয় প্রস্তাবই পেশ করা হবে। সরকারের পরামর্শের ভিত্তিতে একটি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। যদি আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কথা ঘোষণা করে, তবে আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সাথে বৈঠক করবে এবং এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবে।

আটটি ফ্র্যাঞ্চাইজির শীর্ষস্থানীয় কিছু কর্মকর্তাও গত সপ্তাহে নিজেদের মধ্যে কথা বলেছেন এবং আইপিএল সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলে গেলে তাদের কোনো সমস্যা নেই জানান।

সংযুক্ত আরব আমিরাতও আগ্রহী। গাল্ফ নিউজের সাথে কথা বললে, দুবাই স্পোর্টস সিটির ক্রিকেট ও ইভেন্টের প্রধান সালমান হানিফ (যার মধ্যে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম এবং আইসিসি একাডেমি অন্তর্ভুক্ত) বলেছেন যে তারা হোস্টিং এবং অনুশীলনের সুযোগসুবিধা সরবরাহ করতে প্রস্তুত। “স্টেডিয়ামের শীর্ষে নয়টি উইকেট রয়েছে। উইকেট টাটকা ভালো রাখতে আমরা সেখানে এখন কোনও ম্যাচ নির্ধারিত করব না, ”বলেছেন হানিফ।

IPL in UAE

যদিও সংযুক্ত আরব আমিরাতও সীমিত দর্শকদের নিয়ে আইপিএল সঞ্চালনের সম্ভাবনার কথা বলেছে, বিসিসিআই কেবল আপাতত ক্লোর-ডোর ম্যাচ আয়োজনের কথা চিন্তা করছে অর্থাৎ মাঠে কোনো দর্শক রাখতে চাচ্ছেন না।

সামনের মাসে প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি তার পদে আর হয়তো থাকছেন না। তার সময় সীমা ইতোমধ্যে শেষের দিকে।

Related Articles